অনার্স ভর্তি ২০২৪ – অনার্স ভর্তি আবেদন শুরু কবে?

4/5 - (1 vote)

২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি আবেদন শুরু হবে জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারি ২০২৪ সালে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে (nu.ac.bd) ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সাথে সাথে আবেদন শুরুর তারিখ জানানো হবে।

২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি আবেদন শুরু হয়েছিল ২৫ এপ্রিল ২০২৩ সালে এবং শেষ হয়েছিল ০৫ মে ২০২৩ সালে।

অনার্স ভর্তির বিজ্ঞপ্তি কবে প্রকাশ হবে?

২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তির বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে সাধারণত এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশের পর এক থেকে দুই মাসের মধ্যে ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। ২০২৩ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল ২৬ নভেম্বর ২০২৩ তারিখে প্রকাশিত হয়েছে। সুতরাং, ২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের সম্ভাব্য তারিখ হলো জানুয়ারি বা ফেব্রুয়ারি ২০২৪।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে (nu.ac.bd) অনার্স ভর্তি সংক্রান্ত সব তথ্য পাওয়া যাবে।

অনার্স ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে?

২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে তা নির্ভর করে নির্দিষ্ট কলেজের, বিভাগের এবং পদের উপর। তবে সাধারণত এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা মিলিয়ে সর্বনিম্ন জিপিএ ৭ (এসএসসি তে ৩.৫০ ও এইচএসসি তে ৩.৫০) পয়েন্ট থাকলে অনার্স ভর্তি হওয়ার সুযোগ থাকে।

২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৭ (এসএসসি তে ৩.৫০ ও এইচএসসি তে ৩.৫০) পয়েন্ট পেয়েও অনেক শিক্ষার্থী নির্দিষ্ট কলেজের বা বিভাগের জন্য প্রয়োজনীয় পয়েন্ট না পেয়ে ভর্তি হতে পারেননি। তাই নির্দিষ্ট কলেজের বা বিভাগের জন্য প্রয়োজনীয় পয়েন্ট জানতে হলে সংশ্লিষ্ট কলেজের ওয়েবসাইট বা ভর্তি সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি দেখতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোতে অনার্স ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয় না। ভর্তি হয় মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে।

২০২৪ অনার্স ভর্তির ন্যূনতম যোগ্যতা কত?

শাখা এসএসসি এইচএসসি টোটাল জিপিএ
মানবিক ৩.০০ ৩.০০ ৬.৫০
ব্যবসায় শিক্ষা ৩.০০ ৩.০০ ৭.০০
বিজ্ঞান ৩.০০ ৩.০০ ৭.০০

মানবিক বিভাগ

মানবিক বিভাগে ভর্তির জন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় পৃথকভাবে জিপিএ ৩.০ থাকতে হবে। এছাড়াও, উভয় পরীক্ষা মিলিয়ে জিপিএ ৬.৫ থাকতে হবে। অর্থাৎ, একজন শিক্ষার্থী যদি এসএসসিতে জিপিএ ৪.০ এবং এইচএসসিতে জিপিএ ৩.৫ পায়, তবে সে মানবিক বিভাগে আবেদন করতে পারবে।

উদাহরণ

  • একজন শিক্ষার্থীর এসএসসি জিপিএ ৪.০ এবং এইচএসসি জিপিএ ৩.৫ হলে তার মোট জিপিএ ৭.৫ হবে। সে মানবিক বিভাগে আবেদন করতে পারবে।
  • একজন শিক্ষার্থীর এসএসসি জিপিএ ৪.৫ এবং এইচএসসি জিপিএ ৩.৫ হলে তার মোট জিপিএ ৮.০ হবে। সে মানবিক বিভাগে আবেদন করতে পারবে।

বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগ

বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে ভর্তির জন্য এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় পৃথকভাবে জিপিএ ৩.০ থাকতে হবে। এছাড়াও, উভয় পরীক্ষা মিলিয়ে জিপিএ ৭.০ থাকতে হবে। অর্থাৎ, একজন শিক্ষার্থী যদি এসএসসিতে জিপিএ ৪.০ এবং এইচএসসিতে জিপিএ ৩.০ পায়, তবে সে বিজ্ঞান বা ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে আবেদন করতে পারবে।

উদাহরণ

  • একজন শিক্ষার্থীর এসএসসি জিপিএ ৪.০ এবং এইচএসসি জিপিএ ৩.০ হলে তার মোট জিপিএ ৭.০ হবে। সে বিজ্ঞান বা ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে আবেদন করতে পারবে।
  • একজন শিক্ষার্থীর এসএসসি জিপিএ ৪.৫ এবং এইচএসসি জিপিএ ৩.৫ হলে তার মোট জিপিএ ৮.০ হবে। সে বিজ্ঞান বা ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগে আবেদন করতে পারবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

  • ২০২৪-২৫ শিক্ষাবর্ষে অনার্স ভর্তি হতে কত পয়েন্ট লাগবে তা এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে সাধারণত আগের বছরের তুলনায় কিছুটা কম পয়েন্ট লাগতে পারে।
  • উপরের তথ্যগুলো শুধুমাত্র একটি ধারণা দেওয়ার জন্য। নির্দিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য প্রয়োজনীয় যোগ্যতা জানতে হলে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট বা ভর্তি সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি দেখতে হবে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি আবেদন পদ্ধতি

আবেদনের যোগ্যতা

  • ২০২৩ সালের উচ্চ মাধ্যমিক (HSC)/সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে।
  • এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় পৃথকভাবে জিপিএ ৩.০ থাকতে হবে।

আবেদনপত্র পূরণের পদ্ধতি

  • আবেদনপত্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট থেকে সংগ্রহ করতে হবে।
  • আবেদনপত্রে প্রয়োজনীয় তথ্য পূরণ করতে হবে।
  • আবেদনপত্রের সাথে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করতে হবে।
  • আবেদনপত্রের নির্ধারিত ফি জমা দিতে হবে।

আবেদনপত্রের ফি

  • প্রাথমিক আবেদন ফি: ২৫০ টাকা।
  • ভর্তি নিশ্চয়তা ফি: ১০০০ টাকা।

আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত কাগজপত্র

  • মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট ও মার্কশিট।
  • এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ড।
  • ছবি (পাসপোর্ট সাইজের)।
  • স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের প্রধান কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত চারিত্রিক সনদপত্র।

আবেদনপত্র যাচাই-বাছাই

  • আবেদনপত্রের প্রাথমিক যাচাই-বাছাই সংশ্লিষ্ট কলেজে করা হবে।
  • প্রাথমিকভাবে যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে যোগ্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করা হবে।

মেধাতালিকা প্রকাশ

  • প্রাথমিকভাবে যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে যোগ্য প্রার্থীদের মধ্য থেকে মেধাতালিকা প্রকাশ করা হবে।
  • মেধাতালিকা প্রকাশ করা হবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে।

ভর্তি নিশ্চয়তা

  • মেধাতালিকা অনুযায়ী কলেজ নির্ধারণ করা হবে।
  • নির্ধারিত কলেজে ভর্তির জন্য শিক্ষার্থীকে ভর্তি নিশ্চয়তা প্রদান করতে হবে।
  • ভর্তি নিশ্চয়তা ফি সংশ্লিষ্ট কলেজে জমা দিতে হবে।

ভর্তি কার্যক্রম

  • ভর্তি কার্যক্রম শুরু হবে মেধাতালিকা প্রকাশের পর।
  • ভর্তি কার্যক্রমে শিক্ষার্থীকে নির্ধারিত কাগজপত্র জমা দিতে হবে।
  • ভর্তি কার্যক্রমে শিক্ষার্থীকে ভর্তি ফি জমা দিতে হবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য

  • ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

আবেদনপত্র পূরণের নিয়মাবলী

  • আবেদনপত্রে প্রার্থীর নাম, পিতার নাম, মাতার নাম, স্থায়ী ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানা, জন্ম তারিখ, জাতীয়তা, ধর্ম, মোবাইল নম্বর, ইমেইল ঠিকানা ইত্যাদি তথ্য সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে।
  • আবেদনপত্রের সাথে সংযুক্ত সকল কাগজপত্রের সত্যায়িত কপি জমা দিতে হবে।
  • আবেদনপত্রের সাথে রঙিন ছবি (পাসপোর্ট সাইজের) সংযুক্ত করতে হবে।
  • আবেদনপত্রের সাথে ভর্তি ফি জমা দিতে হবে।

ভর্তি কার্যক্রমের শেষ তারিখ

ভর্তি কার্যক্রমের শেষ তারিখ জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

উপসংহার

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি আবেদনপত্র পূরণের পদ্ধতি, ভর্তি কার্যক্রম এবং ভর্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।

কিছু প্রশ্ন ও উত্তর অনার্স ভর্তি ২০২৪ নিয়ে

অনার্স ভর্তি কত টাকা?

অনার্স ভর্তির জন্য সরকারি কলেজে ৩ হাজার থেকে ৫ হাজার টাকা খরচ হয়ে থাকে। অন্যদিকে বেসরকারি কলেজে ৫ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়ে থাকে। তবে, কলেজের অবস্থান, বিভাগ, এবং অন্যান্য বিষয়ের উপর ভিত্তি করে ভর্তি ফি ভিন্ন ভিন্ন হতে পারে।

অনার্সে ভর্তি হতে কি কি কাগজপত্র লাগে?

১. এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার মূল নম্বরপত্র ও সার্টিফিকেট।
২. এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন কার্ড।
৩. জাতীয় পরিচয়পত্র অথবা জন্ম নিবন্ধন সনদ।
৪. ছবি (পাসপোর্ট সাইজের) ০৪ (চার) কপি।
৫. কোটা সুবিধাভোগীদের জন্য নির্ধারিত কাগজপত্র।
৬. ভর্তি ফিসহ অন্যান্য ফি পরিশোধের রশিদ।

Leave a Comment