রেজিস্টার কাকে বলে বাংলা ব্যাকরণে

Rate this post

এই প্রবন্ধে আপনি জানবেন রেজিস্টার কাকে বলে বাংলা ব্যাকরণে। নিছে বিষয়টি নিয়ে বিস্তারভাবে তুলে ধরা হল।

রেজিস্টার কাকে বলে বাংলা ব্যাকরণে

বাংলা ব্যাকরণে, রেজিস্টার হলো একটি নির্দিষ্ট অর্থ প্রকাশের জন্য ব্যবহৃত একটি শব্দ বা শব্দসমষ্টি। রেজিস্টার সাধারণত নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে বা সম্প্রদায়ের মধ্যে ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, “আমি” শব্দটি প্রথম ব্যক্তির একবচন সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়, যা সাধারণত একজন ব্যক্তির নিজের সম্পর্কে কথা বলার জন্য ব্যবহৃত হয়। এটি একটি রেজিস্টার।

বাংলা ব্যাকরণে, রেজিস্টারকে কয় ভাগে ভাগ করা হয়

বাংলা ব্যাকরণে, রেজিস্টারকে তিনটি ভাগে ভাগ করা হয়:

  • উচ্চ রেজিস্টার: এই রেজিস্টারে ব্যবহৃত শব্দ বা শব্দসমষ্টিগুলি সাধারণত আনুষ্ঠানিক বা লেখ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, “আপনি” শব্দটি দ্বিতীয় ব্যক্তির একবচন সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়, যা সাধারণত একজন ব্যক্তির অন্য ব্যক্তির সাথে আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলার জন্য ব্যবহৃত হয়।
  • মধ্য রেজিস্টার: এই রেজিস্টারে ব্যবহৃত শব্দ বা শব্দসমষ্টিগুলি সাধারণত আধা-আনুষ্ঠানিক বা কথ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, “তুমি” শব্দটি দ্বিতীয় ব্যক্তির একবচন সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়, যা সাধারণত একজন ব্যক্তির অন্য ব্যক্তির সাথে আধা-আনুষ্ঠানিকভাবে কথা বলার জন্য ব্যবহৃত হয়।
  • নিম্ন রেজিস্টার: এই রেজিস্টারে ব্যবহৃত শব্দ বা শব্দসমষ্টিগুলি সাধারণত অনানুষ্ঠানিক বা কথ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, “ওরে” শব্দটি দ্বিতীয় ব্যক্তির একবচন সর্বনাম হিসেবে ব্যবহৃত হয়, যা সাধারণত একজন ব্যক্তির অন্য ব্যক্তির সাথে অনানুষ্ঠানিকভাবে কথা বলার জন্য ব্যবহৃত হয়।

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম রয়েছে:

  • উচ্চ রেজিস্টার সাধারণত আনুষ্ঠানিক বা লেখ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, একটি চিঠি বা নিবন্ধ লেখার সময় উচ্চ রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত।
  • মধ্য রেজিস্টার সাধারণত আধা-আনুষ্ঠানিক বা কথ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, একজন বন্ধু বা পরিবারের সদস্যের সাথে কথা বলার সময় মধ্য রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত।
  • নিম্ন রেজিস্টার সাধারণত অনানুষ্ঠানিক বা কথ্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। উদাহরণস্বরূপ, একজন বন্ধুর সাথে কথা বলার সময় নিম্ন রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত।

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতনতা থাকা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, রেজিস্টার ব্যবহারের ভুলের কারণে একজন ব্যক্তির কথাবার্তায় ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।

রেজিস্টার ব্যবহারের উদাহরণ

উচ্চ রেজিস্টার:

  • “আমি আপনাকে শ্রদ্ধা করি।”
  • “আমি আপনার সাথে একমত নই।”
  • “আমি এই কাজটি করতে পারি না।”

মধ্য রেজিস্টার:

  • “তুমি কি আমাকে সাহায্য করতে পারো?”
  • “আমি এটা করতে চাই না।”
  • “আমি আজ রাতে বের হতে পারি না।”

নিম্ন রেজিস্টার:

  • “ওরে, কী করছিস?”
  • “আমি এটা করব না।”
  • “আমি এখন যেতে চাই।”

রেজিস্টার পরিবর্তন করার কারণ

রেজিস্টার পরিবর্তন করার অনেক কারণ থাকতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, একজন ব্যক্তি রেজিস্টার পরিবর্তন করতে পারে:

  • পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে: একজন ব্যক্তি আনুষ্ঠানিক বা অনানুষ্ঠানিক পরিবেশে কথা বলার সময় রেজিস্টার পরিবর্তন করতে পারে।
  • কথোপকথনকারীর উপর ভিত্তি করে: একজন ব্যক্তি তার কথোপকথনকারীর সাথে তার সম্পর্ক অনুসারে রেজিস্টার পরিবর্তন করতে পারে।
  • নিজের ব্যক্তিগত পছন্দের উপর ভিত্তি করে: একজন ব্যক্তি তার নিজের ব্যক্তিগত পছন্দ অনুসারে রেজিস্টার পরিবর্তন করতে পারে।

রেজিস্টার ব্যবহারের ভুল

রেজিস্টার ব্যবহারের ভুলের কারণে একজন ব্যক্তির কথাবার্তায় ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, একজন ব্যক্তি যদি আনুষ্ঠানিক পরিবেশে অনানুষ্ঠানিক রেজিস্টার ব্যবহার করে, তাহলে সে অভদ্র বলে মনে হতে পারে।

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতনতা থাকা গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, রেজিস্টার ব্যবহারের ভুলের কারণে একজন ব্যক্তির কথাবার্তায় ভুল বোঝাবুঝি হতে পারে।

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কতা

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত:

  • পরিস্থিতি বিবেচনা করুন: আপনি যে পরিবেশে কথা বলছেন তা বিবেচনা করুন। আপনি যদি আনুষ্ঠানিক পরিবেশে কথা বলছেন, তাহলে উচ্চ রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত। আপনি যদি অনানুষ্ঠানিক পরিবেশে কথা বলছেন, তাহলে মধ্য বা নিম্ন রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত।
  • আপনার কথোপকথনকারীকে বিবেচনা করুন: আপনি যে ব্যক্তির সাথে কথা বলছেন তার সাথে আপনার সম্পর্ক বিবেচনা করুন। আপনি যদি একজন অচেনা ব্যক্তির সাথে কথা বলছেন, তাহলে উচ্চ রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত। আপনি যদি একজন বন্ধু বা পরিবারের সদস্যের সাথে কথা বলছেন, তাহলে মধ্য বা নিম্ন রেজিস্টার ব্যবহার করা উচিত।
  • আপনার নিজের ব্যক্তিগত পছন্দ বিবেচনা করুন: আপনার নিজের ব্যক্তিগত পছন্দকেও বিবেচনা করুন। আপনি যদি উচ্চ রেজিস্টার ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তাহলে তা করুন। আপনি যদি মধ্য বা নিম্ন রেজিস্টার ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, তাহলে তা করুন।

আমাদের আরেটি পোষ্ট: ব্যাকরণ কাকে বলে?

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু টিপস

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু টিপস দেওয়া হল:

  • শব্দভান্ডার সম্পর্কে সচেতন থাকুন: বিভিন্ন রেজিস্টারে ব্যবহৃত বিভিন্ন শব্দভান্ডার রয়েছে। আপনি যদি বিভিন্ন রেজিস্টারের শব্দভান্ডার সম্পর্কে সচেতন থাকেন, তাহলে আপনি সঠিক রেজিস্টার ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।
  • উচ্চারণ সম্পর্কে সচেতন থাকুন: বিভিন্ন রেজিস্টারে বিভিন্ন উচ্চারণ রয়েছে। আপনি যদি বিভিন্ন রেজিস্টারের উচ্চারণ সম্পর্কে সচেতন থাকেন, তাহলে আপনি সঠিক রেজিস্টার ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।
  • প্র্যাকটিস করুন: বিভিন্ন রেজিস্টারে কথা বলার জন্য প্র্যাকটিস করুন। আপনি যত বেশি প্র্যাকটিস করবেন, আপনি তত বেশি সঠিক রেজিস্টার ব্যবহার করতে সক্ষম হবেন।

রেজিস্টার ব্যবহারের ক্ষেত্রে সচেতনতা এবং সতর্কতা অবলম্বন করলে আপনি আপনার কথাবার্তাকে আরও সুন্দর এবং অর্থবহ করে তুলতে পারবেন।

Leave a Comment