ব্যাকরণ কাকে বলে? ব্যাকরণ কত প্রকার ও কি কি

Rate this post

আজকের আমাদের পোষ্টে আপনি জানতে চলেছেন ব্যাকরণ কাকে বলে? ব্যাকরণ কত প্রকার ও কি কি? যদিও আমরা ব্যাকরণের বিভিন্ন  সংজ্ঞা রয়েছে আমরা গুরুত্ব সংজ্ঞাটি তুলে ধরলাম।

বাংলা ব্যাকরণ কাকে বলে?

বাংলা ব্যাকরণ হলো বাংলা ভাষার একটি বিধিবদ্ধ বর্ণনা। এই বর্ণনায় বাংলা ভাষার শব্দ, বাক্য এবং তাদের গঠন, ব্যবহার এবং অর্থ সম্পর্কে আলোচনা করা হয়। ব্যাকরণ হলো ভাষার বিজ্ঞান। এটি ভাষার গঠন এবং ব্যবহারের নিয়মগুলি নিয়ে আলোচনা করে।

ব্যাকরণের সংজ্ঞা

  • ড. সুনীতিকুমার চট্টোপাধ্যায়ের মতে, “যে শাস্ত্রে কোন ভাষাকে বিশ্লেষণ করে তার স্বরূপ, আকৃতি ও প্রয়োগনীতি বুঝিয়ে দেয়া হয়, সেই শাস্ত্রকে বলে সেই ভাষার ব্যাকরণ।”
  • ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহের মতে, “যে শাস্ত্র জানলে ভাষা শুদ্ধরূপে লিখতে, পড়তে ও বলতে পারা যায় তার নাম ব্যাকরণ।”

বাংলা ব্যাকরণের প্রকারভদ

বাংলা ব্যাকরণকে প্রধানত তিনটি ভাগে ভাগ করা যায়:

  • বর্ণনামূলক ব্যাকরণ: এটি বর্তমানে প্রচলিত বাংলা ভাষার বিবরণ দেয়।
  • ঐতিহাসিক ব্যাকরণ: এটি বাংলা ভাষার বিবর্তনকে সময়ের সাথে সাথে অধ্যয়ন করে।
  • তুলনামূলক ব্যাকরণ: এটি বিভিন্ন ভাষার মধ্যে বাংলা ভাষার সাদৃশ্য এবং পার্থক্যগুলি অধ্যয়ন করে।

বাংলা ব্যাকরণের অন্যান্য কিছু উল্লেখযোগ্য শাখা হল:

  • ধ্বনিবিজ্ঞান: এটি বাংলা ভাষার ধ্বনিগুলির গঠন এবং প্রয়োগ অধ্যয়ন করে।
  • শব্দতত্ত্ব: এটি বাংলা ভাষার শব্দগুলির গঠন এবং অর্থ অধ্যয়ন করে।
  • বাক্যতত্ত্ব: এটি বাংলা ভাষার বাক্যাংশ এবং বাক্যগুলির গঠন এবং অর্থ অধ্যয়ন করে।
  • বাগবিধি: এটি বাংলা ভাষার বিভিন্ন বাগ্ধারা এবং শব্দের ব্যবহার অধ্যয়ন করে।

বাংলা ব্যাকরণ একটি বিস্তৃত বিষয়। এটি বাংলা ভাষার বিভিন্ন দিকগুলি অধ্যয়ন করে। বাংলা ব্যাকরণ বোঝা বাংলা ভাষার উচ্চারণ, শব্দভান্ডার, বাক্যাংশ এবং বাক্য গঠন ইত্যাদির নিয়মগুলি বোঝার জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

ব্যাকরণকে চারটি প্রধান ভাগে ভাগ করা যায়:

  • ধ্বনিবিজ্ঞান (Phonology): ভাষার ধ্বনিগুলির অধ্যয়ন।
  • শব্দতত্ত্ব (Morphology): শব্দের গঠন এবং বিবর্তন অধ্যয়ন।
  • বাক্যতত্ত্ব (Syntax): বাক্যের গঠন এবং বিন্যাস অধ্যয়ন।
  • ভাষাতত্ত্ব (Semantics): ভাষার অর্থ অধ্যয়ন।

ধ্বনিবিজ্ঞান

ধ্বনিবিজ্ঞান হল ভাষার ধ্বনিগুলির অধ্যয়ন। এটি ভাষার ধ্বনিগুলির উৎপত্তি, গঠন, বৈশিষ্ট্য, শ্রেণীবিভাগ এবং ব্যবহার অধ্যয়ন করে।

ধ্বনিবিজ্ঞানের প্রধান শাখাগুলি হল:

  • উচ্চারণবিদ্যা (Phonetics): ভাষার ধ্বনিগুলির উচ্চারণ অধ্যয়ন।
  • ধ্বনিতত্ত্ব (Phonology): ভাষার ধ্বনিগুলির কাঠামো এবং বিন্যাস অধ্যয়ন।

শব্দতত্ত্ব

শব্দতত্ত্ব হল শব্দের গঠন এবং বিবর্তন অধ্যয়ন। এটি শব্দের উৎপত্তি, গঠন, শ্রেণীবিভাগ এবং ব্যবহার অধ্যয়ন করে।

শব্দতত্ত্বের প্রধান শাখাগুলি হল:

  • শব্দের উৎপত্তি (Etymology): শব্দের ইতিহাস এবং উৎপত্তি অধ্যয়ন।
  • শব্দগঠন (Morphology): শব্দের গঠন এবং বিবর্তন অধ্যয়ন।
  • শব্দার্থবিদ্যা (Semantics): শব্দের অর্থ অধ্যয়ন।

বাক্যতত্ত্ব

বাক্যতত্ত্ব হল বাক্যের গঠন এবং বিন্যাস অধ্যয়ন। এটি বাক্যের উপাদানগুলির মধ্যে সম্পর্ক এবং বাক্যের অর্থ নির্ধারণের নিয়মগুলি অধ্যয়ন করে।

বাক্যতত্ত্বের প্রধান শাখাগুলি হল:

  • বাক্যের উৎপত্তি (Syntax): বাক্যের ইতিহাস এবং উৎপত্তি অধ্যয়ন।
  • বাক্যের গঠন (Syntactic structure): বাক্যের উপাদানগুলির মধ্যে সম্পর্ক অধ্যয়ন।
  • বাক্যের অর্থ (Semantic interpretation): বাক্যের অর্থ নির্ধারণের নিয়মগুলি অধ্যয়ন।

ভাষাতত্ত্ব

ভাষাতত্ত্ব হল ভাষার অর্থ অধ্যয়ন। এটি ভাষার অর্থের উৎপত্তি, গঠন, বৈশিষ্ট্য এবং ব্যবহার অধ্যয়ন করে।

ভাষাতত্ত্বের প্রধান শাখাগুলি হল:

  • ভাষার অর্থ (Semantics): ভাষার অর্থের উৎপত্তি, গঠন, বৈশিষ্ট্য এবং ব্যবহার অধ্যয়ন।
  • ভাষার ব্যবহার (Pragmatics): ভাষার ব্যবহারের প্রেক্ষাপট এবং নিয়মগুলি অধ্যয়ন।

ব্যাকরণের কাজ

ব্যাকরণের প্রধান কাজ হলো একটি ভাষার শব্দ, শব্দের রূপ, শব্দের অর্থ, শব্দের ব্যবহার, বাক্যের গঠন, বাক্যের অর্থ ইত্যাদি নিয়মকানুন সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করা। এছাড়াও, ব্যাকরণের আরও কিছু কাজ হলো:

  • ভাষার বিকাশে সহায়তা করা।
  • ভাষার ব্যবহার শুদ্ধ করা।
  • ভাষার গঠন ও অর্থ সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করা।
  • ভাষার শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধিতে সহায়তা করা।
  • ভাষার মাধ্যমে সৃজনশীলতা প্রকাশে সহায়তা করা।

বাংলা ব্যাকরণের শাখাসমূহ

বাংলা ব্যাকরণের প্রধান শাখাগুলি হল:

  • ধ্বনিবিজ্ঞান
  • শব্দতত্ত্ব
  • বাক্যতত্ত্ব
  • বাগবিধি

ধ্বনিবিজ্ঞান

ধ্বনিবিজ্ঞান হল একটি ভাষাবিজ্ঞানের শাখা যা ভাষার ধ্বনিগুলির গঠন এবং প্রয়োগ অধ্যয়ন করে। এটি ভাষার ধ্বনিগুলির উৎপত্তি, স্বরূপ, শ্রেণীবিভাগ এবং প্রয়োগের নিয়মগুলি অধ্যয়ন করে।

বাংলা ভাষার ধ্বনিগুলিকে পাঁচটি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়:

  • স্বরধ্বনি
  • ব্যঞ্জনধ্বনি
  • অঘোষ ব্যঞ্জনধ্বনি
  • ঘোষ ব্যঞ্জনধ্বনি
  • শ্বাসাঘাত

শব্দতত্ত্ব

শব্দতত্ত্ব হল একটি ভাষাবিজ্ঞানের শাখা যা ভাষার শব্দগুলির গঠন এবং অর্থ অধ্যয়ন করে। এটি ভাষার শব্দগুলির উৎপত্তি, গঠন, অর্থ এবং প্রয়োগের নিয়মগুলি অধ্যয়ন করে।

বাংলা ভাষার শব্দগুলিকে তিনটি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়:

  • মূল শব্দ
  • উপসর্গ
  • অব্যয়

বাক্যতত্ত্ব

বাক্যতত্ত্ব হল একটি ভাষাবিজ্ঞানের শাখা যা ভাষার বাক্যাংশ এবং বাক্যগুলির গঠন এবং অর্থ অধ্যয়ন করে। এটি ভাষার বাক্যাংশ এবং বাক্যগুলির উপাদানগুলির মধ্যে সম্পর্ক এবং বাক্যাংশ এবং বাক্যগুলির অর্থ তৈরির নিয়মগুলি অধ্যয়ন করে।

বাংলা ভাষার বাক্যাংশগুলিকে তিনটি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়:

  • নাম বাক্যাংশ
  • ক্রিয়া বাক্যাংশ
  • বিশেষণ বাক্যাংশ

বাংলা ভাষার বাক্যগুলিকে দুইটি শ্রেণীতে ভাগ করা যায়:

  • সরল বাক্য
  • জটিল বাক্য

বাগবিধি

বাগবিধি হল একটি ভাষাবিজ্ঞানের শাখা যা ভাষার বিভিন্ন বাগ্ধারা এবং শব্দের ব্যবহার অধ্যয়ন করে। এটি ভাষার বিভিন্ন বাগ্ধারাগুলির অর্থ এবং প্রয়োগের নিয়মগুলি অধ্যয়ন করে।

বাংলা ভাষার কিছু সাধারণ বাগ্ধারা হল:

  • আকাশ থেকে পড়া
  • হাত-পা ছড়িয়ে
  • চোখের পলকে
  • হাত গুটিয়ে
  • মাথা নত করে

বাংলা ভাষার কিছু বিশেষ শব্দের ব্যবহার হল:

  • এটা
  • ওটা
  • সেটা
  • ঐটা
  • সেইটা

 

বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের উপায়

বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের জন্য বিভিন্ন উপায় রয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল:

  • স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ভাষার ব্যাকরণ পাঠ্যক্রম গ্রহণ করা।
  • বাংলা ব্যাকরণের উপর লেখা বই এবং প্রবন্ধ পড়া।
  • বাংলা ভাষার ব্যাকরণ বিষয়ক ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ ব্যবহার করা।
  • বাংলা ভাষাভাষীদের সাথে কথা বলা এবং তাদের কাছ থেকে শিখতে চাওয়া।

স্কুল, কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে বাংলা ভাষার ব্যাকরণ পাঠ্যক্রম গ্রহণ করা বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের সবচেয়ে প্রাতিষ্ঠানিক উপায়। এই পাঠ্যক্রমগুলিতে বাংলা ভাষার ধ্বনিবিজ্ঞান, শব্দতত্ত্ব, বাক্যতত্ত্ব এবং বাগবিধির বিভিন্ন দিকগুলি অন্তর্ভুক্ত থাকে।

বাংলা ব্যাকরণের উপর লেখা বই এবং প্রবন্ধ পড়া বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের আরেকটি কার্যকর উপায়। এই বই এবং প্রবন্ধগুলি বাংলা ভাষার বিভিন্ন দিকগুলি সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করে।

বাংলা ভাষার ব্যাকরণ বিষয়ক ওয়েবসাইট এবং অ্যাপ ব্যবহার করা বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের একটি সহজ এবং দ্রুত উপায়। এই ওয়েবসাইট এবং অ্যাপগুলিতে বাংলা ভাষার বিভিন্ন দিকগুলির উপর সংক্ষিপ্ত এবং সহজবোধ্য আলোচনা থাকে।

বাংলা ভাষাভাষীদের সাথে কথা বলা এবং তাদের কাছ থেকে শিখতে চাওয়া বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের একটি প্রাকৃতিক উপায়। এই উপায়ে একজন ব্যক্তি বাংলা ভাষার বাস্তব ব্যবহার সম্পর্কে জানতে পারে।

বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জনের জন্য কোনও একটি উপায়ই সবচেয়ে ভালো নয়। একজন ব্যক্তি তার পছন্দ এবং সুবিধা অনুযায়ী বিভিন্ন উপায়ের সমন্বয় করে বাংলা ব্যাকরণের জ্ঞান অর্জন করতে পারে।

বাংলা ব্যাকরণের গুরুত্ব

বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এর জ্ঞান অর্জনের মাধ্যমে একজন ব্যক্তি বাংলা ভাষাকে সঠিকভাবে ব্যবহার করতে পারে। বাংলা ব্যাকরণের গুরুত্ব নিম্নরূপ:

  • ভাষার বিকাশে সহায়তা করা: বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার বিকাশে সহায়তা করে। ব্যাকরণ বাংলা ভাষার গঠন এবং ব্যবহারের নিয়মগুলি সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে। এই জ্ঞান বাংলা ভাষার বিকাশে সহায়ক হয়।
  • ভাষার ব্যবহার শুদ্ধ করা: বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার ব্যবহার শুদ্ধ করতে সহায়তা করে। ব্যাকরণ বাংলা ভাষার শুদ্ধ ব্যবহারের নিয়মগুলি সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে। এই জ্ঞান বাংলা ভাষার ব্যবহার শুদ্ধ করতে সহায়ক হয়।
  • ভাষার গঠন ও অর্থ সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করা: বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার গঠন ও অর্থ সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে। ব্যাকরণ বাংলা ভাষার শব্দ, বাক্য এবং তাদের গঠন, ব্যবহার এবং অর্থ সম্পর্কে আলোচনা করে। এই জ্ঞান বাংলা ভাষার গঠন ও অর্থ সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনে সহায়ক হয়।
  • ভাষার শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধিতে সহায়তা করা: বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। ব্যাকরণ বাংলা ভাষার নতুন নতুন শব্দ এবং তাদের ব্যবহার সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে। এই জ্ঞান বাংলা ভাষার শব্দভাণ্ডার বৃদ্ধিতে সহায়ক হয়।
  • ভাষার মাধ্যমে সৃজনশীলতা প্রকাশে সহায়তা করা: বাংলা ব্যাকরণ বাংলা ভাষার মাধ্যমে সৃজনশীলতা প্রকাশে সহায়তা করে। ব্যাকরণ বাংলা ভাষার গঠন এবং ব্যবহারের নিয়মগুলি সম্পর্কে জ্ঞান প্রদান করে। এই জ্ঞান বাংলা ভাষার মাধ্যমে সৃজনশীলতা প্রকাশে সহায়ক হয়।

FAQ

ব্যাকরণ কাকে বলে?

ব্যাকরণ হলো একটি ভাষার স্বরূপ, গঠন, প্রয়োগ, বিবর্তন ইত্যাদি নিয়মকানুনের বিশ্লেষণ ও ব্যাখ্যা। যে শাস্ত্রে কোন ভাষার স্বরূপ, প্রকৃতি ও প্রয়োগরীতি বুঝিয়ে দেওয়া হয় তাকে ব্যাকরণ বলে।

বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশটি বাক্যের গঠন এবং অর্থ নিয়ে আলোচনা করে?

উত্তর: বাক্যতত্ত্ব। বাক্যতত্ত্ব হলো বাংলা ব্যাকরণের একটি অংশ যা বাক্যের গঠন এবং অর্থ নিয়ে আলোচনা করে। এটি বাক্যের বিভিন্ন উপাদান, যেমন পদ, পদবিন্যাস, বাক্যাংশ এবং বাক্যের অর্থ নিয়ে আলোচনা করে।

বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশটি শব্দের গঠন এবং অর্থ নিয়ে আলোচনা করে?

উত্তর: শব্দতত্ত্ব। শব্দতত্ত্ব হলো বাংলা ব্যাকরণের একটি অংশ যা শব্দের গঠন এবং অর্থ নিয়ে আলোচনা করে। এটি শব্দের বিভিন্ন শ্রেণী, যেমন নামপদ, ক্রিয়াপদ, বিশেষণপদ ইত্যাদি, এবং শব্দের অর্থ নিয়ে আলোচনা করে।

বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশটি ধ্বনির উচ্চারণ এবং প্রয়োগ নিয়ে আলোচনা করে?

উত্তর: ধ্বনিতত্ত্ব। ধ্বনিতত্ত্ব হলো বাংলা ব্যাকরণের একটি অংশ যা ধ্বনির উচ্চারণ এবং প্রয়োগ নিয়ে আলোচনা করে। এটি ধ্বনির বিভিন্ন শ্রেণী, যেমন স্বরধ্বনি, ব্যঞ্জনধ্বনি ইত্যাদি, এবং ধ্বনির উচ্চারণ ও প্রয়োগ নিয়ে আলোচনা করে।

বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশটি ভাষার ইতিহাস এবং বিবর্তন নিয়ে আলোচনা করে?

ঐতিহাসিক ব্যাকরণ। ঐতিহাসিক ব্যাকরণ হলো বাংলা ব্যাকরণের একটি অংশ যা ভাষার ইতিহাস এবং বিবর্তন নিয়ে আলোচনা করে। এটি ভাষার অতীতের রূপ এবং বর্তমান রূপের মধ্যে সম্পর্ক বোঝার চেষ্টা করে।

বাংলা ব্যাকরণের কোন অংশটি বিভিন্ন ভাষার মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করে?

তুলনামূলক ব্যাকরণ। তুলনামূলক ব্যাকরণ হলো বাংলা ব্যাকরণের একটি অংশ যা বিভিন্ন ভাষার মধ্যে সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা করে। এটি বিভিন্ন ভাষার মধ্যে সাধারণ বৈশিষ্ট্যগুলি চিহ্নিত করে এবং এই বৈশিষ্ট্যগুলি কীভাবে উৎপন্ন হয়েছে তা বোঝার চেষ্টা করে।

 
 

Leave a Comment